করোনা আতঙ্কের মধ্যেও মসজিদে নামাজ বন্ধ না করার ঘোষণা পাকিস্তানের! - সিটি নিউজ
শুক্র. এপ্রি ৩, ২০২০

করোনা আতঙ্কের মধ্যেও মসজিদে নামাজ বন্ধ না করার ঘোষণা পাকিস্তানের!

পাকিস্তানে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এখনই জুমার জামাত বন্ধ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।এদিন সকালে পাকিস্তান ওলামা কাউন্সিলের শীর্ষ আলেমরা করোনার কারণে জুমার জামাত বন্ধ রাখার পক্ষে মত দিয়েছিলেন। করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় এ পরিস্থিতিতে মসজিদে জুমার নামাজ না পড়ার ফতোয়া দেন তারা।এর আগে সোমবার দেশের উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে বিশ্বখ্যাত ইসলাম প্রচারক মাওলানা তারিক জামিলের সঙ্গে বৈঠক করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। করোনা থেকে রক্ষা পেতে সবার মুক্তির জন্য মাওলানা তারিক জামিলের কাছে বিশেষ দোয়া চান পাক প্রধানমন্ত্রী। তাবলিগী ইজতেমাসহ ধর্মীয় বিভিন্ন অনুষ্ঠান সীমাবদ্ধ রাখারও অনুরোধ জানান তিনি।

পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রী পীর নুরুল হক কাদরীও আলেমদের কাছে খুতবা ও নামাজ সংক্ষিপ্ত করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। পাঞ্জাব ও সিন্ধুপ্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় পাকিস্তানজুড়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২৩৬ জন কোভিড ১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।মঙ্গলবার নতুন করে পাঁচজনের শরীরে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদিকে পাকিস্তানজুড়ে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার এ ভাষণে নোভেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে পাকিস্তান সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরবেন।

যুক্তরাষ্ট্রকে করোনার ওষুধ দেবে না চীন!সারা বিশ্বে বইছে করোনা ঝড়। আর এই করোনা নিয়ে প্রতিদিনই চলছে কাদা ছোড়াছুড়ি। করোনা মোকেবেলায় এবার যুক্তরাষ্ট্রকে কোন ধরণের জরুরী ওষুধ দেবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছে চীন। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে বাণিজ্য যুদ্ধের জের ধরেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে চীন। চীনা গণমাধ্যম এ খবর নিশ্চিত করেছে।যুক্তরাষ্ট্রে অ্যান্টিবায়োটিক এবং অন্যান্য ওষুধের বেশিরভাগ সরবরাহ করত চীন। চীনা বাণিজ্য বিভাগের দেওয়া তথ্য মতে, যুক্তরাষ্ট্র আইবুপ্রোফেন ৯৫%, হাইড্রোকার্টিসন ৯১%, এসিটামিনোফন ৭০%,পেনিসিলিন ৪০% থেকে ৪৫% এবং হেপারিন ৪০% আমদানি করে চীন থৈকে।

সব মিলিয়ে, যুক্তরাষ্ট্রে অ্যান্টিবায়োটিকের ৮০% সরবরাহ করা হয় চীন থেকে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চীনের বর্তমান অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। এ অবস্থায় দেখা দিয়েছে ওষুধের ঘাটতি সেই সাথে প্রয়োজন মাফিক ওষুধ উৎপাদন করাও সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে বিশ্বব্যাপী ওষুধ সরবরাহে নেতিবাচক ভূমিকা পালন করছে ভারত এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো।সেক্ষেত্রে চীনই ছিলো একমাত্র ভরসা। অন্যদিকে চীনের এমন সিদ্ধান্তে যুক্তরাষ্ট্রে আবারো ওষুধ উৎপাদনের জন্য তাগিদ দিচ্ছেন ট্রাম্প প্রশাসন। এর আগ গেলো দু দশক ধরে চীনে ও অন্যান্য দেশে ওষুধ রপ্তানী করা হত যুক্তরাষ্ট্র থেকে।

দেশে আরও এক করোনা রোগী শনাক্ত,গাজীপুরে এক ইতালি প্রবাসীর শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. খাইরুজ্জামান জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।সিভিল সার্জন জানান, ১৪ মার্চ ৪৪ জন ইতালি ফেরতকে মহানগরীর মেঘডুবি এলাকার মা ও শিশু কেন্দ্র হাসপাতালের কোয়ারেস্টাইনে রাখা হয়। এদের ১৫ মার্চ চারজন ও ১৬ মার্চ চারজনকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ঢাকায় পাঠানো হয়। ওই ৮ জনের মধ্যে একজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। গাজীপুরের ওই কোয়ারেন্টাইনে এখনও ৩৬ ইতালি প্রবাসী রয়েছেন। এছাড়া পুরো গাজীপুর জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৮ জন।

এখন পর্যন্ত দেশে মোট ১১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলো। মঙ্গলবার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মঙ্গলবার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১০ জন, এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩ জন।করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বন্ধু পাকিস্তানকে কৃতজ্ঞতা জানাল চীন!বেইজিং-ইসলামাবাদের সম্পর্ককে ঐতিহাসিক পছন্দ বলে আখ্যায়িত করেছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তিনি বলেন, দুই দেশের নাগরিকদের হৃদয়ের গভীরে সেই সম্পর্কের শিকড় রয়েছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে চীনাদের লড়াইয়ে পাশে থাকায় এসময় প্রতিবেশী পাকিস্তানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন চীনা কমিউনিস্ট পার্টির এই নেতা। খবর ডন অনলাইনের

গ্রেট হল অব পিপলে পাক প্রেসিডেন্ট ডা. আরিফ আলভির সঙ্গে বৈঠকে তিনি এমন মন্তব্য করলেন। তিনি বলেন, আমরা একটি স্থিতিশীল ও সমৃদ্ধ ঐক্যবদ্ধ পাকিস্তান দেখতে চাই। শি জিনপিং বলেন, আন্তর্জাতিক দৃশ্যপট যেভাবেই বদলে যাক না কেন, তাতে কিছুই যায় আসে না। চীন সবসময় জোরালোভাবে পাকিস্তানের পাশেই থাকবে।কাজেই এই লৌহকঠিন বন্ধুত্ব ও কৌশলগত সহযোগিতা বাড়াতে চীন সবসময় প্রতিশ্রুত থাকবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। চীনা প্রেসিডেন্ট বলেন, আন্তর্জাতিক ঘটনাবলী ও আঞ্চলিক ইস্যুতে গঠনমূলক ভূমিকায় চীন সবসময় পাকিস্তানকে সমর্থন করবে।

প্রেসিডেন্ট আলভির সফরকে গুরুত্বপূর্ণ আখ্যায়িত করে শি জিনপিং বলেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয়ে চীনা নাগরিকরা লড়াই চালিয়ে যাবে। প্রেসিডেন্ট আলভির এই সফর আমাদের প্রতি কঠিন সমর্থনের বর্হিপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেন শি জিনপিং। তিনি বলেন, এতে চীনা নাগরিকদের প্রতি পাকিস্তানের গভীর বন্ধুত্বই ফুটে উঠেছে।

‘চীন যখন মহামারীর বিরুদ্ধে লড়ছিল, তখন পাকিস্তান সরকার ও জনগণ নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়ে চীনকে সমর্থন দিয়েছে।’ যে কারণে পাকিস্তানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন চীনা প্রেসিডেন্ট।
কোভিড-১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে যখন লড়াই চলছে, তখন চীনা নেতৃবৃন্দ ও নাগরিকদের প্রতি সংহতি জানাতে দেশটিতে সফর করেন বলে জানান ডা. আরিফ আলভি। তিনি বলেন, প্রতিকূলতা মোকাবেলায় বিশ্বকে নিজেদের সক্ষমতা দেখিয়েছে চীন। করোনাভাইরাসের সকল আপডেট নিয়মিত পেতে নিচে লাইক করুন।